Continue Reading

স্বপ্ন হবে সত্যি

স্বপ্ন হবে সত্যি ।। লেখা : ডাঃ জয়দীপ মুখোপাধ্যায় অনলাইনে ক্লাসটা শেষ হতেই তুতুনের চোখদুটো যেন বুজে এলো। আবার একঘন্টা পরে ভূগোলের ক্লাস। দুপুরে না খেয়ে শুয়ে পড়লে মায়ের কাছে বকা খাওয়া অবধারিত।তুতুন দেখতে পেলো ঘরটা অন্ধকার হয়ে এসেছে। ওর পাশে রাখা মোবাইল থেকে একটা হালকা নীলাভ আলো সেই অন্ধকারে…

Continue Reading

অচিনপুর

অচিনপুর ।। লেখা : শ্রেয়া বাগচী মায়ের ফোন হারিয়ে গিয়ে জুঁইয়ের মন খারাপ। তার এখন দাদু-ঠাম্মি, লাটুদাদু আর সবুজ বাড়ির কথা মনে পড়ছে। দুর্গাপুজোয় একবারই ঠাম্মির বানানো মুড়ির মোয়া, কুলের আচার আর ছাদে দেওয়া বড়ির স্বাদ পায় জুঁই। জুঁই তখন সবুজ বাড়ির দীঘিতে পদ্ম পাতার উপর শিশিরের ফোঁটা গুনে নিয়ে…

Continue Reading

হলুদ পরী

হলুদ পরী ।। লেখা : তনিমা সাহা ঋতমের আজ খুব মনখারাপ। ক্লাস ফোরে পড়ে সে। বার্ষিক রেজাল্টটা এবার একটুকুও ভালো হলো না। বাড়িতে মা-বাবা, কাকু, দাদু-ঠাকুমা সবাই আশা করে বসে আছেন ঋতমের ভালো-রেজাল্টের জন্য। বাড়ির একদম কাছেই স্কুল… তাই ঋতম একাই যায় স্কুলে। রেজাল্ট নিয়ে এসেই সে দীঘির পাড়ে মনমরা…

Continue Reading

জীবনের শিক্ষা

জীবনের শিক্ষা ।। লেখা : প্রসেনজিৎ দত্ত একদা একদেশে এক চাষী তার দুই ছেলেকে নিয়ে শান্তিতে বাস করত। চাষী ছিল কর্মঠ। মনের জোরে সব কাজ সে একাই করত। সংসারে সব দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে দুই ছেলেকে মানুষ করার দায়িত্ব নিয়েছিল। সারাদিন মাঠে হাড়ভাঙা খাটুনির পর প্রতি বছর সোনার ফসলঘরে তুলতো। এইভাবে…

Continue Reading

লকডাউন

লকডাউন ।। লেখা : শঙ্কর নাথ প্রামাণিক দোতলায় ব্যালকনির পাশে পড়ার ঘরে ছোট্ট প্রকাশ। গতকাল বিকেলে সামান্য জ্বর হওয়ার পর থেকে মা তাকে পড়ার ঘরেই থাকতে বলেছে। প্রকাশ একা ছেলে। সঙ্গী বলতে মা আর বাবা। খেলাধুলা নেই, বন্ধুবান্ধব নেই। স্কুল যেন ইঁদুরদৌড়ের প্রতিযোগিতার স্থান। এখন বাড়িতে মা বাবাও দূরে দূরে…

Continue Reading

যদি এমন হতো

যদি এমন হতো ।। লেখা : প্রমিতা মান্না -“রোহান, রোহান। উঠ! উঠ! সকাল হয়ে গেছে পড়তে বসতে হবে তো নাকি!” রোহান পড়াশোনা খেলাধূলা সবেতেই খুব ভালো। একদিন রোহান দুপুরে স্বপ্ন দেখে সে তার তিনটে হাত দিয়ে অংক করছে, হঠাৎ মা ডাকায় রোহানের স্বপ্ন ভেঙে যায়, সে মাকে বলে স্বপ্নের কথা,…

Continue Reading

তাল তলার মাঠে

তাল তলার মাঠে ।। লেখা : অসীম কুমার চট্টোপাধ্যায় সেদিন ছিল উত্তরপাড়ার সাথে আমাদের কলাবাগানের শিল্ড ফাইনাল। দুটো টিমই খুব ভালো। হাবুল স্যার আমাদের দলের কোচ। কয়েকদিন ধরে খুব প্রাকটিস করাচ্ছেন ছেলেদের। স্কুল থেকে ফিরেই আমরা সোজা চলে যাই তালতলার মাঠে। প্রাকটিস দেখি। বিকেল সাড়ে তিনটের সময় খেলা শুরু। মাঠ…

Continue Reading

বন্ধ ঘরে টিকটিকির ভূত

বন্ধ ঘরে টিকটিকির ভূত।। লেখা : শ্রীপর্ণা দাস ব্যানার্জী রিম্পি প্রায় চার মাস পরে ঢুকবে নিজের বাড়িতে। সেই যে মামার বাড়ি গেল মা বাবার সাথে তারপর তো আর ফিরতেই পারল না, করোনার জন্য সব কিছু বন্ধ। মামাতো ভাই বোনের সাথে বেশ কাটছিল সময়। এদিকে বাড়ি ফেরার তাড়াও ছিল বাবা মায়ের,…

Continue Reading

আলোর বিচ্ছুরণ

আলোর বিচ্ছুরণ।। লেখা : অমিত কুমার জানা দুপুর থেকে মেঘ কালো হয়ে প্রবল বৃষ্টি শুরু হলো। অষ্টম শ্রেণীর সায়ন প্রতিদিন বিকেলে তাদের গ্ৰামের মাঠে ফুটবল খেলতে যায়। আজ তার ছোট্ট ভাই সানু বায়না ধরলো সেও মাঠে যাবে। সায়ন সানুকে বললো যে ও খুব ছোট্ট, ওকে বন্ধুরা খেলতে নেবে না। তবুও…

Continue Reading

উপকথার গাছ

উপকথার গাছ ।। লেখা : দিলীপ কুমার ঘোষ এক যে ছিল গাছ। সে গাছে হত না পাতা-ফুল-ফল। গাছ পারত না ছায়া দিতে, কীটপতঙ্গকে ডাকতে, পাখিকে বসাতে। কেউ যেত না তার কাছে। তার ছিল না এতটুকু কদর। মন খারাপ করে তাই সে সবসময় ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করত, “হে ভগবান, আমায় পাতায়…

Continue Reading

বুড়োদাদুর গল্পের ঝুলি

বুড়োদাদুর গল্পের ঝুলি ।। লেখা : রিয়া ভট্টাচার্য বুড়ো দাদু ছেলেপিলেদের গল্প শোনাতে বসেন প্রতিসন্ধ্যায়। ঠিক যখন মামণির শঙ্খয় ফুঁ পড়ে, মিষ্টিদিদু নিজের ঘরে সুর করে রামায়ণ পাঠ করেন, কালবোশেখী ঝড়ে ঝুরঝুর ঝরে পড়ে বড়ো গাছটার পাতা… ঠিক সেই সময়, বুড়োদাদুকে ঘিরে বসে মৌটুসী ও তার বন্ধুরা।মহামারীর জন্য এখন তালা…

Continue Reading

ক্লাসের বন্ধু

ক্লাসের বন্ধু ।। লেখা : দীপঙ্কর বেরা -“আমগাছের ডালে আটকে যাওয়া ঘুড়িটা যে পাড়তে পারবে তাকে আমি এই চকলেটটা দেব।”রকির এই কথায় বিলু বলে, “আরে ঘুড়িটা তো ছিঁড়ে গেছে, মাঞ্জা কাটা। তাহলে ওই ঘুড়ি নিয়ে কি করবি?”“সে পরে দেখা যাবে? কে পারবি বল?”মিতুল, অর্ণব, আর্য, পলি, সান্তা, সবাই চুপচাপ দাঁড়িয়ে…

Continue Reading

বেইমানির শাস্তি

বেইমানির শাস্তি ।। লেখা : শুভঙ্কর ভট্টাচার্য হরিদেবপুর নামে একটি জায়গাতে এক দুধওয়ালা বসবাস করতো, যার নাম ছিল রবি। তার বেচা দুধের চাহিদা ছিল খুব। তার দুধ খুব খাঁটি হওয়ায় চাহিদাও ছিল অনেক। কেবল হরিদেবপুরের মধ্যেই না, আশে পাশের আরও তিন চারটি জায়গা থেকে মানুষ দুধ কিনে নিয়ে যেত।সময়ের সাথে…

Continue Reading

অভিমান

অভিমান ।। লেখা : শংকর দেবনাথ সামনে বইখাতা খোলা। টিচার আসবেন পড়াতে। বিকেল পাঁচটায়। হোমওয়ার্কটা এখুনি করতে হবে। নইলে…।কিন্তু কিছুতেই ছোট্ট শ্রমণের মন বসতে চাইছে না পড়াতে। বারবার যেন আনমনা হয়ে যাচ্ছে। বইয়ের দিকে তাকালেই মনে হচ্ছে অক্ষরগুলো যেন ওকে হাঁ করে গিলতে আসছে।হঠাৎ খোলা জানালা দিয়ে বাতাস আসে। ওর…

Continue Reading

শ্রেয়া ও আমি

শ্রেয়া ও আমি ।। লেখা : সুবীর মজুমদার আমি ঈশানী। বাবা আমাকে আদর করে পুটু বলে ডাকেন। অন্যেরা ডাকে পুটি বলে। আমার মাসির মেয়ে গুল্লি প্রায়ই আমাকে পুঁটি মাছ বলে। পুঁটি মাছ বললে আমার খুব রাগ হয়। আচ্ছা বল তো, আমি কি মাছ?ছোটবেলার দিনগুলো কত ভালো ছিল। সারাদিন খেলা করতাম।…