Continue Reading

আবিষ্কারের নেশায়

      ছোটবেলা থেকেই দাদার আর আমার অজানাকে জানার অদম্য আগ্রহ ও ইচ্ছে ছিল। ১৯৭৭ সাল- বাবা তখন দার্জিলিং তাগদার রেঞ্জ অফিসার ছিলেন। ’৭৭ থেকে ’৮১ সাল পর্যন্ত বাবা ছিলেন দার্জিলিং এ।  দার্জিলিং জোড়বাংলো থেকে ১৬ কি.মি. ভেতরে আরও উপরে তাগদাবাজার। তাগদা যেতে প্রথমে পড়বে তাগদা অর্কিড সেন্টার, তারপর…

Continue Reading

পলাশ সাক্ষী

      স্কুলের সুবর্ণজয়ন্তী বর্ষের শুভারম্ভের দিন ১০ই ফেব্রুয়ারি আর  বিদ্যার দেবী সরস্বতী’র আরাধনা একই দিনে– এমন সমাপতন ক্কচিৎ দেখা যায়, শোনা যায়। সারদা নিকেতন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভাগ্যাকাশে এমন একটি দিন আসায়  ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-অশিক্ষক কর্মচারী– সকলেই ভীষণ আপ্লুত। স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি থেকে শুরু করে নাইন-টেন, ইলেভেন-টুয়েলভের ছাত্র-ছাত্রীরা প্রায় দিন…

Continue Reading

জন্মদিন

    বিকালের চায়ের কাপ হাতে নিয়ে টিভির পর্দায় চোখ রেখে অভিরূপ তখনো বসে, এমন সময় মোবাইলটা বেজে উঠল। পিনাকেশ বাবুর ফোন। “দাদা, শুনেছেন নিশ্চয়ই খবরটা!” “হ্যাঁ, এখনো টিভির সামনেই। এই মাত্র ভাবছিলাম আপনাকে ফোন করব একটা।” অভিরূপের গলায় কেমন যেন একটা বিষন্নতার সুর। “এ কি, অভিরূপদা, গলাটা এমন শোনাচ্ছে…

Continue Reading

দিনের শেষে

      -“হ্যালো পরি, কিরে কোথায়, রাত ১১টা হয়ে গেল!” -“হ্যাঁ, মা একটু দেরী হয়ে গেল, অফিসের ডিনার পার্টি এই শেষ হল। ঘন্টা খানেক এর মধ্যে পৌঁছে যাব। তুমি প্লিজ চিন্তা করো না, খেয়ে নিও।” -“কিন্তু এত রাতে তুই একা একা…” -“আরে চিন্তা করছো কেন? অভীক আর সন্দীপ আছে…

Continue Reading

হেমন্তিকা

    ঘড়িতে যখন ভোর ৫:৩০, ঠিক তখনই অ‍্যালার্ম ক্লকের তীব্র আর্তনাদে ঘুম ভাঙে মধুছন্দার। এটাই রোজকার রুটিন। ঘুম চোখেই বিছানার পাশে রাখা ছোট্ট পাস টেবিলটা থেকে হাতড়ে নিয়ে ঘড়িটা কে চুপ করায়। আজও এর অন্যথা ঘটলো না। আড়মোড়া ভেঙে চোখ মেলতেই দেখে নিল সে সৌরভকে। বাচ্চা ছেলের মতো হাত-পা…

Continue Reading

আশ্রয়

    ছেলেটা কেঁদেই চলেছে রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে। পাশে এক বৃদ্ধার রক্তাক্ত দেহ।  কিছুক্ষণ আগেই রাস্তা পার হতে গিয়ে একটা বেপরোয়া চার চাকার ছোট গাড়ি ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে গেছে। ছেলেটা পেছনে ছিল বলে বরাত জোরে বেঁচে গেছে। বৃদ্ধা গোঙাতে গোঙাতে ওখানেই পড়ে রইলো। চিৎকার করে কাঁদতে কাঁদতে ছেলেটা আশেপাশের কয়েকজনকে…

Continue Reading

নিবারণের সংসার

      সুরমা আর নিবারণের অভাবের সংসার, যাকে বলে নুন আনতে পান্তা ফুরোয়, তবুও দুজনের সুখের সংসার। সুরমা নিঃসন্তান, এই কষ্ট টা সুরমাকে ভিতরে ভিতরে কুরে খায়। কিন্তু আজ অবধি নিবারণ কখনো অভিযোগের আঙ্গুল তার দিকে তোলে নি, সেটা আরও বেশি পীড়া দেয়। মফস্বলের একটি শহরে তাদের বাস। এক…

Continue Reading

হলাহল

    আবার সেই রোববার। দুহপ্তার টানা ব্যস্ততার পর একটু ফাঁকা ছিলাম সকাল থেকে। পাশের রুমে কেউ না থাকায় আড্ডার ও বালাই নেই। এক বন্ধুর প্ররোচনায় হাতে এসেছে ওরহান পামুকের ‘The Strangeness in My Mind’। সেটাই উল্টে-পাল্টে দেখতে দেখতে কখন আনমনে চুপ করে থাকা পাখাটির দিকে চেয়ে ল্যাদ খেতে শুরু…

Continue Reading

সংক্রান্তি

      -“বাবিন, বেরোচ্ছিস নাকি অফিসে?” -“হ্যাঁ, কেন?” -“একটা কথা ছিল।” -“আবার কি, জলদি জলদি বলো, অলরেডি লেট হয়ে গেছি।” -“রোজই তোর দেরী হয় ফিরতে। বলছি আজ অফিস থেকে তাড়াতাড়ি ফিরবি বাবু। তোর জন্যে ওই নলেন গুড়ের..“ -“দু’দিন অন্তর অন্তর তোমাদের ওই এক প্রলাপ। কি করে আমাকে বাড়িতে আটকে…

Continue Reading

অব্যক্ত স্বদেশপ্রেম

    সকাল থেকে আজ জয়দেবের খুব ব্যস্ততা। ‘নব তরুণ সংঘ’ ক্লাবের আজ পঁচিশ বছর পূর্ণ হচ্ছে, তার ওপর আজ ২৬শে জানুয়ারী, প্রজাতন্ত্র দিবস। তাই আজ ক্লাবে সারাদিন ধরে নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। প্রভাতফেরী, পতাকা উত্তোলন, অঙ্কন প্রতিযোগিতা, দুঃস্থদের বস্ত্র বিতরণ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ইত্যাদি। ‘নব তরুণ সংঘে’-র সেক্রেটারী জয়দেব…

Continue Reading

ছুটি

    সোমবার সকাল সকাল রিজিওনাল ম্যানেজার কুলকার্নি সাহেবকে রিসিভ করতে এয়ারপোর্ট যেতে হয়েছিল শুভময় দাসগুপ্তকে। প্রোমোশনের বছর, কোন রকম ঝুঁকি নেওয়া উচিত নয়, তাছাড়া প্রোটোকল বলেও একটা জিনিস রয়েছে প্রাইভেট কোম্পানিতে যেটা খুব ইম্পর্ট্যান্ট।  অন্য কোনো অফিসারের ওপর ভরসা করতে পারেন না শুভময়। তাছাড়া উনি যেভাবে শক্ত হাতে অফিসটা…

Continue Reading

স্বপ্নের নবজন্ম

    ছোটবেলা থেকে দেবারতির স্বপ্ন ছিল চুটিয়ে সংসার করবে । শ্বশুর, শাশুড়ি , দেওর ,ননদ,বর , এক দঙ্গল ছেলেমেয়ে , কাজের লোক আরো কতজনকে নিয়ে । কম বয়সে রবিঠাকুর ,শরৎচন্দ্র, আশাপূর্ণা দেবীর গল্প পড়ে স্বপ্নের এই পথচলাটা দেবারতির কাছে অস্বাভাবিক ছিল না মোটেও ।কিন্তু মন চাইলেই তো আর সব…

Continue Reading

আনন্দধারা

    শীত শীত সকাল ঘুমের আড়মোড়া ভাঙছে ধীরে ধীরে…।দেওয়াল ঘড়িটার দিকে রঞ্জা তাকিয়ে দেখল পৌঁনে আটটা বাজে। এই যাঃ!! দেরি হয়ে গেল আজ ঘুম ভাঙতে।ঝটপট উঠে গিয়ে স্নান সেরে রান্নাঘরে ঢুকলো ও। আজ রবিবার,তাই রান্নার খুব একটা তাড়া নেই। সকালের ব্রেকফাস্টে আজ কুশলের প্রিয় কফি, ব্রেড টোস্ট,স্ক্রাম্বল্ড এগ্ বানালো…

Continue Reading

পুনর্জীবন

    প্রায় আধঘণ্টা হয়ে গেল। পুরু ফ্রেমের বয়স্ক মানুষটা গম্ভীর মুখে চেষ্টা চলাচ্ছেন। অম্লান উসখুস করছে একটা সিগারেট ধরানোর জন্যে। কিন্তু পারছে না। কে জানে হয়ত এই বয়স্ক মানুষটা চিনে ফেলতে পারেন মুখের আদল দেখে । অম্লানের বাবা এই শহরের নামী জেলা স্কুলের অঙ্কের টিচার ছিলেন। অম্লান জানে, এই…

Continue Reading

পৌষপার্বণে ডবল বোনাস

    অরুন আর পিয়ার বিবাহিত জীবনের এতগুলো বছর ওরা পার করে এলেও ওদের মধ্যে ভালবাসাটা যেন সেই প্রথম দিনের মতই আছে৷ আজও কেউ কাউকে ছাড়া এক মুহূর্ত থাকতে পারে না৷ ওদের একটা ছেলে একটা মেয়ে৷ অরুনাভ আর প্রিয়দর্শিনী৷ ওরা অবশ্য ওদেরকে অরি আর প্রিয়া বলেই ডাকে৷ ওরাও নিজেদের কর্ম…