অন্বেষণ

 

 

একটি বাঁকের মুখে দাঁড়িয়ে ভাবছি-

কোথায় গিয়ে শেষ হবে এই পথ,

সামনে কি আছে অপেক্ষায় কোনো বিপদ!

আলো-আঁধারে জীবন অজানা আশঙ্কায়,

পায়ে-পায়ে চলেছি জীবনের সীমারেখায়,

যেখানে দাঁড়িয়ে, অজস্র শিকড় পায়ের নিচে-

একটা ছাড়ালে আরেকটা যায় জড়িয়ে।

এই জনহীন পথ ছিল না আমার জন্যে,

তবুও অতিক্রান্ত সময়কে দিয়েছি জীবন মেপে,

সব বাধা পেরিয়ে চলেছি সূর্যের খোঁজে,

যেখানে থাকবে না পাপ-মোহ-মায়া,

নিজেকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে শুচি-শুদ্ধ করা।

সময় এসেছে নিজেকে নিঃস্ব-রিক্ত করব এখন,

জন্ম থেকে জন্মান্তর ধরে করছি

আলোর অন্বেষণ।

 

 

 

কলমে – শুচিতা

ছবি – অরিজিৎ

Author: admin_plipi

6 thoughts on “অন্বেষণ

    1. হ্যাঁ ।এটা পাঙ ভ্যালি ছাড়িয়ে মোড় প্লেন এ উঠতেই।

  1. সুনীল গাঙ্গুলি শেষ দিকটায় এমন খাপছাড়া লিখতেন। এই খাপছাড়া অসঙ্গগতিতে ছন্দ ও মেলবন্ধন খুঁজে পাওয়াই কবিতার প্রাপ্তি। বারবার পরেও যেখানে একটা আক্ষেপ থেকে যায়। অন্বেষণ নামটা স্বার্থক। খুব সুন্দর লেখা। লেখিকা পাঠককুলকে আরও সুন্দর কবিতা উপহার দিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.