স্বপ্নের নবজন্ম

 

 

ছোটবেলা থেকে দেবারতির স্বপ্ন ছিল চুটিয়ে সংসার করবে । শ্বশুর, শাশুড়ি , দেওর ,ননদ,বর , এক দঙ্গল ছেলেমেয়ে , কাজের লোক আরো কতজনকে নিয়ে । কম বয়সে রবিঠাকুর ,শরৎচন্দ্র, আশাপূর্ণা দেবীর গল্প পড়ে স্বপ্নের এই পথচলাটা দেবারতির কাছে অস্বাভাবিক ছিল না মোটেও ।কিন্তু মন চাইলেই তো আর সব পাওয়া যায় না !দেবারতি কলেজের চৌকাঠ পার হবার মুখেই মা চলে গেলেন । তারপর বাবা কেমন যেন খেই হারিয়ে ফেললেন – সবদিক দিয়ে সামাল দেওয়ার সব  কাজ মা’ই তো করতেন ! খুব স্বাভাবিক কারণেই অনার্স পাশ করার পর মাস্টার্স করার ইচ্ছেটা আর পূরণ হয় নি দেবারতির । বাবা , ছোটো দু্ই ভাইবোন ও সংসার সামলানোর দায়িত্ব ওকেই নিতে হল । ভাগ্যদেবী সদয় হলে স্থানীয় একটা হাই স্কুলে ডেপুটেশনে শিক্ষকতার চাকরি পেল দেবারতি , মাস দশেকের জন্য । কিছুটা গুছিয়ে নিয়ে দেবারতি সরকারী চাকরি জুটিয়ে ফেললো দু’তিন বছরের কঠোর পরিশ্রমে  । কিন্তু মনে যে স্বপ্ন লালন করেছিল এতদিন , তা যেন কোথায় মিলিয়ে গেছে সময়ের সাথে সাথে । বিয়ে করে শ্বশুরবাড়ি চলে গেলে কে দেখবো বাবাকে ? ভাই তো ভালো চাকরি পেয়ে ব্যাঙ্গালোরে পাড়ি দিল আর ছোটো বোন এখনো কলেজে পড়ছে ! দেবারতির কিশোরীবেলার স্বপ্নটা দায়িত্বের ভিড়ে চাপা পড়ে গেছে ক্রমশঃ ।
একেকসময় দায়িত্ব সামাল দিতে দিতে বড় একা লাগে দেবারতির । ওর বন্ধুদের প্রায় সবার বিয়ে হয়ে গেছে । বোনটাও হোস্টেলে ।

 

আরো একা হয়ে পড়ে দেবারতি । মাঝে মাঝে ফেসবুকে বন্ধুদের হানিমুনের সুন্দর সুন্দর সব ছবি দেখে মনটা যেন হু-হু করে ওঠে দেবারতির ।
তারপর মরুভূমিতে হঠাৎ আসা জলীয় বাষ্পের  মতই দেবারতির জীবনে আবির্ভাব ঘটলো সবুজের । দেবারতির রিক্ত জীবনে প্রাণখোলা হাসি নিয়ে এল সবুজ । দেবারতির চেয়ে বছর দুয়েকের জুনিয়র সবুজ দেবারতির অফিসে সদ্য জয়েন করেছে । প্রাণবন্ত , দিলখোলা সবুজ দেবারতির মনের অদেখা সেই নরম জায়গায় কেমন করে যেন শক্ত একটা জায়গা দখল করে বসলো ধীরে ধীরে  । দেবারতিকে একটু বেশিই যেন আগলে আগলে রাখে সবুজ । প্রথমদিকে দেবারতি একটু এড়িয়েই চলত সবুজকে , কিন্তু একসময় সবুজের নাছোড় অনুভূতিতে নিজেকে সঁপে দিল যেন ।

 

আর যাই হোক ,  বিধির লিখন কেউ কি আর খণ্ডাতে পারে ?
একদিন আচমকাই সবুজ দেবারতিকে বলে  , “ তোমার দু’চোখে লুকিয়ে রাখা স্বপ্নটাকে প্রাণ দিতে চাই আমি দেবী ।  তোমার বাবার দায়িত্ব কি আমি শেয়ার করতে পারি ?”
দেবারতির ঝাপসা দু’চোখে বাবার নির্লিপ্ত মুখটা ভেসে ওঠার  পাশাপাশি মনের আয়নায় দেখা দেয় লাল টুকটুক আলতায় রাঙানো লাজুক পদক্ষেপ …
খুব খুব বিশ্বাস করতে ইচ্ছে করছে সবুজকে ।

 

 

লেখাঃ মুক্তা

ছবিঃ অনন্যা

 

Sopner nabojonmo  |     Mukta     |     Ananya    |     www.pandulipi.net     |    Emotional     |    Story     |    Bengali    |    Love Story

 

 

You May Also Like

Author: admin_plipi

20 thoughts on “স্বপ্নের নবজন্ম

  1. গল্পটা যেন, শেষ হয়েও হইলো না শেষ!!বেশ ভালো লাগলো।প্রচ্ছদটি খুব সুন্দর 👌

  2. আলতা রাঙানো পা দেখেই আইডিয়াটা এসেছিল গল্পটা লেখার …
    প্রচ্ছদটা সত্যি আমার মনের মত হয়েছে ।
    ধন্যবাদ টিম পাণ্ডুলিপি ।

  3. Golper shesh liner modhheyei golper shuru hoeche bole amar mone holo. Debir moner creator lukie thaka echhe purnota pelican kina taa Jana holo naa. R sekhanei golper ashol akorshon. R aboshoyi lekhikar kreetotto.

  4. এত সহজ ভাবে গল্পটি এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে যে মুগ্ধ হয়ে পড়তে হয়। চরিত্রগুলো যেন জীবন্ত। প্রচ্ছদটিও প্রশংসনীয়।

Leave a Reply

Your e-mail address will not be published.