অন্তঃসলিলা

 

 

ছিল না মন্দাকিনী কিম্বা অলকানন্দা।

এইখানে আছে স্রোতস্বিনী,

চঞ্চলমতি———-আর?

ছন্দিত মধুছন্দা।

কখনো ঠোঁটে, কখনো বুকে

তর্জনী ওঠে ইতস্তত,

কারে চায়, কারে খোঁজে

চপল আঁখি——–?

প্রণয় ডোরে বেঁধেছে যারে

তার লাগি মুখ লজ্জাবনত।

দীঘল কূলে লাজুক ডানা

আমার ফসলক্ষেত,

ওই পাথরে বসব দুজন

নয় কি অভিপ্রেত?

কূল ছাপিয়ে শীর্ণ নদীর

এঁকে বেঁকে চলা——-

সেথায় বসে তোমার কানে

একটু কথা বলা।

এ কূল ও কূল দুই কূলেতে

লজ্জাবতী ডানা,

আমার নদী গোলাপ জলে

চিত্রপটে টানা।

উতল জলে কোমল স্রোতে

পাষাণ ধোয়া জল,

তোমার প্রেমে হব শুচি

নেই কোনো তার তল।

একটু জিরান উৎস তটে

উতল জলে ঢেউ—–

কোমল জলে হারিয়েছি পথ

আর জানে না কেউ।

 

 

লেখাঃ দেবশ্রী

ছবিঃ অনন্যা

 

Antosolila    |    Debashree    |    Ananya    |    https://pandulipi.net    |    Emotional    |    Bengali    |    Poem

You May Also Like

Author: admin_plipi

12 thoughts on “অন্তঃসলিলা

  1. খুব সুন্দর। কবিতাটি যেন ছবি। আর সঙ্গের ছবিটি যেন কবিতা।

    1. কবিতা ও ছবি পরস্পরের পরিপূরক যেমন, তেমনি একজন যোগ্য পাঠকের সঙ্গে লেখিকার মানসিক যোগ সংস্থাপিত হওয়া সৃষ্টিশীতলার পরিপূর্ণতা—-আবার এইভাবেই যোগ্য মতামতের অনুরোধ রইল।

  2. এমনি করে কতো অভিপ্রায় ,গভীর অন্তরে হাঁরিয়ে যায়—খুব সুন্দর ছুঁয়ে গেল অন্তর ।ছবিটি ও সমান সুন্দর ,পাষান পাথর অটল-অনড়

  3. জীবনবোধ যখন পাঠক-হৃদয়ে বিশেষ অনুভূতি জাগায় এবং পাঠক/পাঠিকার হাতে অজান্তেই কলম ধরিয়ে দেয় তখন অন্তঃসলিলা রসোত্তীর্ণ বলে অনুভূত হয়।এভাবেই ভালো-মন্দের বিচারে সমালোচনায় মুখর থেকে উৎসারিত করুন।

  4. মন ছুঁয়ে গেল। খুব সুন্দর। প্রচ্ছদটিও সুচিন্তিত

  5. Pandulipi lekhe ‘ Shabdo o chhabir melbandhan’ slogan ta oti bastab , lekha o chhabi te taai praman kore dilo. Khub bhalo laglo.

  6. লেখা ও ছবির যুগলবন্দি ঘিরে অসাধারণ মন্তব্যগুলিতে প্রাণিত।চেষ্টা থাকবে মানোন্নয়নে।

Leave a Reply

Your e-mail address will not be published.